Home » বাবা লোকনাথ ব্রহ্মচারীর বাণী || Loknath Baba Bani

বাবা লোকনাথ ব্রহ্মচারীর বাণী || Loknath Baba Bani

আমিও তোদের মত খাই-দাই মল-মূত্র ত্যাগ করি আমাকেও তোদের মতই একজন ভেবে নিস আমাকে তোরা শরীর ভেবে ভেবেই সব মাটি করলি আর আমি জে কে আর কাকে সবাই তো ছোট ছোট চাওয়া নিয়ে ভুলে রয়েছে আমার প্রকৃত আমি কে। 
 ----------- লোকনাথের ব্রহ্মচারীর 
যে ব্যক্তি সকলের সুহৃদ। আর যিনি কায়মনোবাক্যে সকলের কল্যাণ সাধন করেন তিনি যথার্থ জ্ঞানী। ----------- লোকনাথের ব্রহ্মচারীর
রনে বনে জলে জঙ্গলে যখন বিপদে পরিবে, আমাকে স্বরন করিও আমিই রক্ষা করিব----------- লোকনাথের ব্রহ্মচারীর
গুরু প্রদত্ত মন্ত্রের শুদ্ধাশুদ্ধ বিচার করা শিষ্যের কর্ম নহে। গুরু যাহা দিয়েছেন শিষ্য তাহাই জপ করিবে।----------- লোকনাথের ব্রহ্মচারীর
যে ব্যক্তি কৃতজ্ঞ ধার্মিক সত্যচারী উদারচিত্ত ভক্তিপরায়ন জিতেন্দ্রিয় মর্যাদা রক্ষা করতে জানে আর কখনো আপন সন্তানকে পরিত্যাগ করেন না এমন ব্যক্তির সঙ্গে বন্ধুত্ব করুন।----------- লোকনাথের ব্রহ্মচারীর
যাহারা আমার নিকট আসিয়া আমার আশ্রয় গ্রহণ করে, তাহাদের দুঃখে আমার হৃদয় আর্দ্র হয়। এই আর্দ্রতাই আমার দয়া, ইহাই আমার শক্তি যা তাহাদের উপর প্রসারিত হয় এবং তাহাদের দুঃখ দূর হয়।----------- লোকনাথের ব্রহ্মচারীর
রনে বনে জলে জঙ্গলে যখন বিপদে পরিবে, আমাকে স্বরন করিও আমিই রক্ষা করিব----------- লোকনাথের ব্রহ্মচারীর
এ আমার উপদেশের স্থল নয়, আদেশের স্থল----------- লোকনাথের ব্রহ্মচারীর
যাহারা আমার নিকট আসিয়া, আমার আশ্রয় গ্রহণ করে তাহাদের দুঃখে আমার হৃদয় আদ্র হয়, এই আদ্রতাই আমার দয়া ইহাই আমার শক্তি যা তাদের উপর প্রসারিত হয় এবং তাহাদের দুঃখ দূর হয়।----------- লোকনাথের ব্রহ্মচারীর
জীবমুক্ত হইতে হইলে সংসার বন্ধন পরিত্যাগ করিতে হইবে----------- লোকনাথের ব্রহ্মচারীর
গুরু প্রদত্ত মন্ত্রের শুদ্ধাশুদ্ধ বিচার করা শিষ্যের কর্ম নহে। গুরু যাহা দিয়েছেন শিষ্য তাহাই জপ করিবে।----------- লোকনাথের ব্রহ্মচারীর
এ আমার উপদেশের স্থল নয়, আদেশের স্থল----------- লোকনাথের ব্রহ্মচারীর
বাক্যবাণ ও বিচ্ছেদবাণ সহ্য করিতে পারিলে মৃত্যুকেও হটাইয়া দেওয়া যায়----------- লোকনাথের ব্রহ্মচারীর
অন্ধকার ঘরে থাকলে তোকে যদি কেহ জিজ্ঞাসা করে তুই কে, তুই বলিস আমি, আমাকে যদি কেউ জিজ্ঞাসা করে আমি বলি আমি নামে নামে এত মিত্রতা হয় আর আমি যে আমি যে কি কোন আমি কোনো মিত্রতা হইতে পারে না।----------- লোকনাথের ব্রহ্মচারীর
গর্জন করবি কিন্তু আহাম্মক হবি না ক্রোধ করবি কিন্তু ক্রোধান্ধ হবি না।----------- লোকনাথের ব্রহ্মচারীর
আমি ধরা না দিলে, আমাকে ধরিতে পারে কার বাপের সাধ্য----------- লোকনাথের ব্রহ্মচারীর
আমি শতাধিক বৎসর পাহাড়-পর্বত পরিভ্রমণ করে বড় একটা ধন কামাই করেছি, তোরা ব'সে খাবি----------- লোকনাথের ব্রহ্মচারীর
দীন দরিদ্র অসহায় মানুষের হাতে যখন যা দিবি তা আমিই পাব আমি গ্রহণ করবো দরিদ্রতায় ভরা সমাজের দুঃখ দূর করার চেষ্টা করবি।----------- লোকনাথের ব্রহ্মচারীর
সত্য এর মত পবিত্র আর কিছু নেই, সত্যিই স্বর্গ গমন এর একমাত্র সোপান রূপ সন্দেহ নেই।----------- লোকনাথের ব্রহ্মচারীর
অন্ধকার ঘরে থাকিলে, তোকে যদি কেহ জিজ্ঞাস করে 'তুই কে?' তুই বলিস 'আমি'। আমাকে যদি কেহ জিজ্ঞাস করে আমিও বলি 'আমি'। নামে নামে এত মিত্রতা হয় আর 'আমি'তে 'আমি'তে কি কোনো মিত্রতা হইতে পারে না?----------- লোকনাথের ব্রহ্মচারীর
আমার যাহা ইচ্ছা তাহাই করিতে পারি, তোদের বিশ্বাস নাই, কাজেই ফলও হয় না----------- লোকনাথের ব্রহ্মচারীর
আমি ধরা না দিলে, আমাকে ধরিতে পারে কার বাপের সাধ্য----------- লোকনাথের ব্রহ্মচারীর
দেহটি যেন একটি পাখীর খাঁচা----------- লোকনাথের ব্রহ্মচারীর
যাহারা আমার নিকট আসিয়া আমার আশ্রয় গ্রহণ করে, তাহাদের দুঃখে আমার হৃদয় আর্দ্র হয়। এই আর্দ্রতাই আমার দয়া, ইহাই আমার শক্তি যা তাহাদের উপর প্রসারিত হয় এবং তাহাদের দুঃখ দূর হয়।----------- লোকনাথের ব্রহ্মচারীর
অন্ধকার ঘরে থাকিলে, তোকে যদি কেহ জিজ্ঞাস করে 'তুই কে?' তুই বলিস 'আমি'। আমাকে যদি কেহ জিজ্ঞাস করে আমিও বলি 'আমি'। নামে নামে এত মিত্রতা হয় আর 'আমি'তে 'আমি'তে কি কোনো মিত্রতা হইতে পারে না?----------- লোকনাথের ব্রহ্মচারীর
অর্থ উপার্জন করা, তা রক্ষা করা, আর তা ব্যয় করা, সময় বিশ্ব দুঃখ ভোগ করতে হয়। অর্থ সকল অবস্থাতেই মানুষকে কষ্ট দেয়, তাই অর্থব্যয় হলে বা চুরি হলে তার জন্য চিন্তা করে কোন লাভ নেই।----------- লোকনাথের ব্রহ্মচারীর
আমার নাশ নাই, আমি নিত্য পদার্থ সুতরাং আমার শ্রাদ্ধও নাইআমি কাহাকেও বা বকি, কাহাকেও বা মারি, আবার কাহাকেও বা কোলে তুলিয়া লই, কিন্তু কাহারও উপর আমার কোনো ক্রোধ নাই----------- লোকনাথের ব্রহ্মচারীর